প্রশ্ন : ৭। ১৯৭১ সালে সংঘটিত গণহত্যার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস লিখ ।অথবা, ১৯৭১ সালের গণহত্যা সম্পর্কে একটি টীকা লিখ ।

১৯৭১ সালে সংঘটিত গণহত্যার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

উত্তর : ভূমিকা : গণহত্যার ইংরেজি প্রতিশব্দ ‘Genocide’. শব্দটি গ্রিক শব্দ ‘Genos’ এবং ল্যাটিন শব্দ ‘Cide’ থেকে উদ্ভূত, যার অর্থ জাতি ও হত্যা। ১৯৪৪ সাল থেকে এ শব্দটি ব্যবহৃত হয়ে আসছে। গণহত্যা বর্তমানে আন্তর্জাতিক অপরাধরূপে গণ্য করা হয়, যার কোনো ক্ষমা নেই। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালরাত্রে পাকবাহিনী এদেশের নিরীহ বাঙালিদের উপর গণহত্যা শুরু করে।

১৯৭১ সালে সংঘটিত গণহত্যা : ১৯৭১ সালে ২৫ মার্চের পাকবাহিনীর হত্যাকাণ্ড ছিল একটি সুপরিকল্পিত বর্বর বাঙালি নিধনযজ্ঞ। সকল অমানবিকতা, বর্বরতা, হিংস্রতা ও নারকীয় উন্মত্ততাকে ছাপিয়ে পাকিস্তানি সেনারা নির্বিচারে বাঙালিদের হত্যা করে, যা বিশ্বের ইতিহাসে এক কালো অধ্যায়। পাকিস্তানি বাহিনী নিরস্ত্র, নিরীহ বাঙালিদের উপর পরিচালিত গণহত্যার নাম দেয় ‘অপারেশন সার্চলাইট।’

১৯৭১ সালে সংঘটিত গণহত্যার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস


২৫ মার্চ, ১৯৭১ ইয়াহিয়া ও ভুট্টো শেখ মুজিবুর রহমানের সাথে রাজনৈতিক সংকটজনিত আলোচনা অসমাপ্ত রেখে সন্ধ্যারাতে কোনো পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই গোপনে ঢাকা ত্যাগ করেন। ঐ রাতেই ইয়াহিয়ার নির্দেশে পাকবাহিনী নিরীহ, নিরস্ত্র বাঙালির উপর হিংস্র হায়েনার মতো ঝাঁপিয়ে পড়ে। হানাদার বাহিনীর নির্বিচার গুলিতে হাজার হাজার বাঙালি নিহত হয়। এজন্য ২৫ মার্চ রাতকে ‘কালরাত’ এবং বর্বর হত্যাযজ্ঞকে ‘গণহত্যা’ বলা হয়। এ গণহত্যা ২৫ মার্চ থেকে শুরু হয়ে পাক বাহিনীর আত্মসমর্পণের পূর্ব পর্যন্ত অর্থাৎ ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলে।

মূল অপারেশন পরিকল্পনা অনুযায়ী পাকবাহিনীর প্রথম আক্রমণের শিকার হয় ফার্মগেইট এলাকায় রাস্তায় মিছিলরত মুক্তিকামী বাঙালিরা । একইসাথে আক্রমণ চালানো হয় পিলখানাসহ তৎকালীন ইপিআরে (বর্তমান BGB হেডকোয়ার্টার ও রাজারবাগ পুলিশ লাইনে)। পাকবাহিনীর হত্যাকাণ্ড ছিল একটি সুপরিকল্পিত নিষ্ঠুর বাঙালি নিধনযজ্ঞ। আন্দোলনের সূতিকাগার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিণত হয় হায়েনাদের অন্যতম শিকারে।

১৯৭১ সালে সংঘটিত গণহত্যার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

এখানে চালানো হয় সবচেয়ে নৃশংস হত্যাকাণ্ড । তৎকালীন ইকবাল হল (বর্তমান জহুরুল হক হল) ও জগন্নাথ হলে পাক সৈন্যরা রকেট হামলা চালিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় । হলে রুমে রুমে তল্লাশি চালিয়ে ছাত্রদের গুলি করে ও বেয়োনেট দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। পাক সেনারা রোকেয়া হল ছাত্রীদের উপর নির্মম পাশবিক অত্যাচার চালিয়ে হত্যা করে। শুধু ছাত্র-ছাত্রী নয়, বর্বর বাহিনী নিরীহ শিক্ষকদেরও হত্যা করে।

ঢাকার বাইরেও চট্টগ্রাম বিভাগ, স্থূনা বিভাগ ও রাজশাহী বিভাগের সর্বত্র কুমিল্লা, বগুড়া, সৈয়দপুর, সিলেটসহ বিভিন্ন শহরে পাক সেনারা তাদের এ নৃশংস হত্যাকাণ্ড চালায় ।

১৯৭১ সালে সংঘটিত গণহত্যার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, ১৯৭১ সালের গণহত্যা ছিল পাকবাহিনীর সুপরিকল্পিত নৃশংস বাঙালি হত্যাযজ্ঞ। হত্যাকাণ্ডসমূহ এতটাই ভয়াবহ ছিল যে, একই দিনে একই স্থানে দশ সহস্রাধিক লোক নিহত হতে দেখা যায়।

লাশের পর লাশ, মায়ের কোলে শিশুর লাশ, কান্নার রোল ও মাতম, রক্তের লাল নদী প্রভৃতি আকাশ-বাতাস ভারী করে তোলে । এসব হত্যাকাণ্ডে পাকবাহিনীকে সহায়তা করে এদেশীয় রাজাকার, আল-বদর, আল-শামস প্রভৃতি দোসররা।

স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস pdf বই ডাউনলোড করুন :

আপনাকে ১ মিনিট অপেক্ষা করানোর পরে। অন্য একটি পোস্ট এ নিয়ে যাওয়া হবে। আপনি সেখানে ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করে ডাউনলোড করবেন।

আর একটি কথা

মনে রাখবেন আপনাকে সেখানেও ১ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে..

Share post:

Subscribe

Popular

More like this
Related